শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ০৪:১২ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ ::
ঈশ্বরদীতে নব জাতকের মৃত্যু, ডাক্তারসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা স্বস্ত্রীক গ্রীনসিটি রাশিয়ান মার্কেট ও লালন শাহ সেতু ঘুরে দেখলেন রাষ্ট্রপতি ঈশ্বরদীতে ডা. দিলীপ রায়ের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে পথসভা ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবে উই এর প্রেসিডেন্টের মতবিনিময় সাইকেল ছিনতাই করতে শিশুর গলা টিপে হত্যার চেষ্টা, আসামি আটক ঈশ্বরদীতে জমজম স্পেশালাইজড হাসপাতালে নবজাতক শিশু হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত দাদপুর উচ্চ বিদ্যালয় এর নবনির্বাচিত ম্যানেজিং কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত পাগলের বেশ ধরেছেন গ্রেফতারকৃত পুলিশ কনস্টেবল কাউছার সহকর্মীকে গুলি করে হত্যার পর খুণী পুলিশ বলে শালা নাটক করতাছে মাটিতে শুয়ে পুলিশ হত্যার কারন জানতে তদন্ত করছে পুলিশ —আইজিপি

করোনায় ভারতীয় ডেল্টা ভেরিয়েন্টের প্রভাব বেশী

ডিডিপি নিউজ ২৪ ডেস্ক
  • প্রকাশিত : সোমবার, ৫ জুলাই, ২০২১

 

দেশে এপ্রিল মাসে প্রথমবারের মতন শনাক্ত হয় ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট বলে অধিক পরিচিত ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। পরবর্তীতে দেশে বিভিন্ন নমুনা পরীক্ষার সিকোয়েন্সিংয়ে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের শনাক্তের হার বৃদ্ধি পেতে থাকে। দেশে এই ভ্যারিয়েন্ট মে মাসে ৪৫ শতাংশ ও জুন মাসে ৭৮ শতাংশ নমুনায় শনাক্ত হয়। এমন অবস্থায় বর্তমানে দেশে কোভিড-১৯ সংক্রমণে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের সুস্পষ্ট প্রাধান্য দেখা যাচ্ছে বলে জানিয়েছে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। গতকাল রোববার প্রতিষ্ঠানটির প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ সব তথ্য জানানো হয়।
আইইডিসিআর’র প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশে ২০২০ সালের ডিসেম্বর থেকে এই বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সিকোয়েন্স করা সকল নমুনায় আলফা ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া যায়। মার্চ মাসে সিকোয়েন্সকৃত মোট নমুনার ৮২ শতাংশ বিটা ভ্যারিয়েন্ট ও ১৭ শতাংশ আলফা ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে। এপ্রিল মাসেও বাংলাদেশে কোভিড-১৯ সংক্রমিতদের মধ্যে বিটা ভ্যারিয়েন্টের প্রাধান্য ছিল।
প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষায় প্রাপ্ত ভ্যারিয়েন্ট সম্পর্কিত তথ্য জিনোম সিকোয়েন্স এর বৈশ্বিক ডাটাবেজে জিআইএসএ আইডিতে জমা দেওয়া হয়ে থাকে। যে ধরনের ভ্যারিয়েন্টই হোক না কেন, তা প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের জন্য সঠিকভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণই করাই একমাত্র উপায়। এর সঙ্গে কোডিড-১৯ টিকাপ্রাপ্তির সঙ্গে সঙ্গে ভ্যাকসিন নেওয়া প্রয়োজন।
আইইডিসিআর জানায়, সারাবিশ্বে কোভিড-১৯ সংক্রমণ বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ভাইরাসটি পরিবর্তিত হয়ে নতুন চেহারা ও বৈশিষ্ট্য ধারণ করছে, যা ভ্যারিয়েন্ট নামে পরিচিত। সংক্রমণের গতি রোগের জটিলতা (মৃত্যু হার ও হাসপাতালে ভর্তির হার), রোগ পরবর্তী ৩ টিকা গ্রহণ পরবর্তী রোগ প্রতিরোধ সক্ষমতা বিবেচনায় কিছু কিছু ভ্যারিয়েন্টকে ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন হিসেবে বিবেচনা করা হয়। যেমন আলফা, বিটা, গামা ও ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। প্রতিবেদনে বলা হয়, ভাইরাসটি ২০১৯ সালে প্রথম শনাক্তের পর থেকে এখনও পর্যন্ত অনেকগুলো ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়েছে। বাংলাদেশে সংক্রমিত মানুষের মধ্যে ভাইরাসটির ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তের জন্য দেশে এ রোগটি শনাক্ত হওয়ার শুরু থেকে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর), আইসিডিডিআর,বি ও আইদেশী যৌথভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
আইইডিসিআর জানায়, দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে গত ডিসেম্বর হতে জুন পর্যন্ত মোট ৬৪৬টি সংগৃহীত কোভিড-১৯ নমুনার জিনোম সিকোয়েন্সিং সম্পন্ন করা হয়েছে। এ সকল নমুনায় কোভিড -১৯ এর আলফা ভ্যারিযৈন্ট (ইউকে-তে প্রথম শনাক্ত), বিটা ভ্যারিয়েন্ট (সাউথ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত), ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট (ভারতে প্রথম শনাক্ত), ইটা ভ্যারিয়েন্ট (নাইজেরিয়াতে প্রথম শনাক্ত), বি ১.১.৬১৮ ভ্যারিয়েন্ট (আনআইডেন্টিফাইড) শনাক্ত হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Copyright 2020 © All Right Reserved By DDP News24.Com

Developed By Sam IT BD

themesba-lates1749691102
error: Content is protected !!